১৪৬ মিনিট আগের আপডেট; রাত ৩:৩২; সোমবার ; ২০ মে ২০২৪

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি ১১ অগাস্ট ২০২১, ২১:৫১

গত ১০ আগষ্ট উখিয়া নিউজ ডট কম অনলাইন পোর্টালে ‘৬ জনের নিয়ন্ত্রণে উখিয়ার করইবনিয়া সীমান্তে ইয়াবা কারবার’ সংবাদটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যমূলক। গত ৫ আগষ্ট রেজু আমতলী বিজিবি সদস্যরা রাত দেড়টার দিকে উখিয়া রত্নাপালং ইউনিয়নের করাইবনিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৪১ কার্ড ইয়াবা উদ্ধার করে। যা সত্যিই প্রশংসনীয় অভিযান। কিন্তু উদ্ধারের ৫ দিন পরে ওই সংবাদটি উদ্দেশ্যমূলকভাবে করা হয়।

এতে আমাদের বক্তব্যও নেয়া হয়নি। সংবাদে উল্লেখিত করইবনিয়া এলাকার আবুল হাসেমের ছেলে কাদের ও আদিলকে আমরা কোনদিন দেখেনি, চিনিও না। তাদের সাথে অহেতুক আমাদের নাম জুড়ে দেয়া হয়েছে। আর আমরা বনে জঙ্গলে আত্মগোপন করার প্রশ্নই আসেনা। স্বাভাবিকভাবেই আমরা জীবন যাপন করছি। 

মূলতঃ কয়েকটি মহল দীর্ঘদিন ধরে আমাদের পারিবারিক সুনাম ক্ষুন্ন ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার মানসে নানা ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। যার ধারাবাহিকতায় বার বার ইয়াবার মতো ঘৃণ্য বিষয়ে আমাদের নাম জড়ানো হয়। সাংবাদিক ভাইদের ভুল তথ্য দিয়ে জনমনে এমন বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। যা সত্যিই দুঃখজনক। 

আলী আহমদের পুত্র ইকবাল দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। হার্টের সমস্যায় সে চিকিৎসার জন্য দিকবিদিক ঘুরছে। তাঁর ভাই ভুট্টু ২০১২ সাল থেকে পঙ্গু। এই অবস্থায় তার চলাফেরাও দায়। সেখানে অহেতুক তাদের নামে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে দুস্কৃতিকারী মহল। এলাকাবাসীর মতে, ৪১ কার্ড ইয়াবা উদ্ধার করা হয় করবনিয়ার চেহের আলীর পুত্র সাহাব উদ্দিনের বাড়ির আশপাশ থেকে। তাঁর দুই ভাই সক্রিয় ইয়াবা কারবারি। তাদের বাঁচাতেই মূলতঃ আমাদের নামে মিথ্যাচার করা হচ্ছে। আমরা ওই ভূঁয়া সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে এ নিয়ে প্রশাসনসহ কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
ফারুক, ইউনুস 
পিতা—রশিদ আহমদ
চাকবৈঠা, ৪নং ওয়ার্ড, রাজাপালং, উখিয়া
ইকবাল ও ভুট্টু 
পিতা—আলী আহমদ, করবনিয়া রত্না পালং, উখিয়া।