১৪০৮ মিনিট আগের আপডেট; রাত ৩:৩৯; সোমবার ; ১৬ জুন ২০২৪

মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নরমাল ডেলিভারিতে রেকর্ড

ফরিদুল আলম দেওয়ান, মহেশখালী ৩০ মার্চ ২০২৩, ১৮:২২

বেসরকারি ক্লিনিকে সন্তান প্রসবকালীন বিভিন্ন জটিলতার অজুহাতে অধিকহারে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে ডেলিভারি সম্পন্ন করে প্রসূতিদের নানা জটিলতা সৃষ্টির এই সময়ে আশার আলো দেখিয়েছে দ্বীপ উপজেলার মহেশখালী হাসপাতাল। একদিনেই ওই হাসপাতালে ২৩ শিশুর নরমাল ডেলিভারি সম্পন্ন করে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। 

গত মঙ্গলবার রাত থেকে গতকাল বুধবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের লেবার ওয়ার্ডে এসব নবজাতকের জন্ম হয়।

মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহফুজুল হক জানান, মাতৃ মৃত্যু ও শিশু মৃত্যুর হার কমানোর উদ্দেশ্যে প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারি উদ্বুদ্ধকরণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি অনেক আগে থেকেই। 

এরই ফলশ্রুতিতে দুর্গম দ্বীপ উপজেলার হাসপাতালে ২৮ মার্চ একদিনেই নরমাল ডেলিভারিতে ১৯ জনসহ ২৯ মার্চ সকাল পর্যন্ত মোট ২৩ জন নবজাতকের জন্মের এই অর্জন এসেছে। মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এখন ১৫ বেডের লেবার ওয়ার্ড চালু করেছি। সিজারিয়ান সেকশন চালু হওয়ার পর তাও সংকুলান হচ্ছে না। আগে হোম ডেলিভারি হত। এখন প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারির হার প্রতিদিন বাড়ছে। যেটা মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যুর হার কমানোর জন্য অত্যন্ত জরুরি। আস্তে আস্তে জনসাধারণ হাসপাতালে ডেলিভারি করার জন্য সচেতন হচ্ছে। এটা একটা খুশির খবর।

মহেশখালী হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. রেজাউল করিম বলেন, গত জানুয়ারি মাসে মহেশখালী হাসপাতালে নরমাল ডেলিভারি সম্পন্ন হয়েছে ২০১টি। ফেব্রুয়ারিতে হয়েছে ১৬৯টি। চলতি মাসের ২৯ মার্চ পর্যন্ত নরমাল ডেলিভারি সম্পন্ন হয়েছে ২০৩টি। বাড়িতে ডেলিভারিতে মা–বাচ্চার মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায়। প্রসবকালীন মা ও বাচ্চার মৃত্যু দুঃখজনক। 

তিনি জানান- মহেশখালী হাসপাতালের বহিঃবিভাগ থেকে শুধুমাত্র তিন টাকার টিকেট নিয়ে গর্ভবতীদের চেক–আপ করা যায়। ১৫০ টাকায় কম্পিউটার চেক আপ করার সুবিধাও রয়েছে তাদের।