৬১০ মিনিট আগের আপডেট; দিন ৯:২৯; শনিবার ; ০৫ জুন ২০২০

বাংলাদেশে ফেসবুক পোস্টের সত্যমিথ্যা যাচাই চলছে রোববার থেকে

অনলাইন ডেস্ক ০৪ মে ২০২০, ২৩:১৭

বাংলাদেশের ব্যবহারকারীরা ভুল বা মিথ্যা তথ্য প্রচার করলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক তা শনাক্ত করে বন্ধের উদ্যোগ নিয়েছে। বাংলাদেশে এই প্রথমবারের মতো আপলোড করা কনটেন্টের যথার্থতা যাচাইয়ের উদ্যোগ নিলো ফেসবুক।

রোববার (৩ মে) থেকেই বাংলাদেশের ব্যবহারকারীদের আপলোড করা ছবি, ভিডিও এবং সংবাদ কনটেন্ট সংবলিত পোস্ট সঠিক কিনা সেটা যাচাইয়ের কাজ শুরু হয়েছে।

ফেসবুকের পক্ষে সত্যতা যাচাই করার এই কাজটি করছে ‘বুম’ নামের একটি ভারতীয় প্রতিষ্ঠান। ফেসবুক তাদের থার্ড পার্টি সহযোগী হিসেবে নির্বাচিত করেছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান পয়েন্টার ইনস্টিটিউটের সত্যতা যাচাই নেটওয়ার্কের একটি সনদপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান এটি।

সত্যতা যাচাইয়ের এই পদ্ধতিতে বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীদের পোস্ট নিউজফিডে আসার আগেই ওই পোস্টের মান ও যথার্থতা যাচাই করে দেখতে পারবে বুমে কর্মরত ফ্যাক্ট চেকাররা। কোনো সংবাদ ভুল প্রমাণিত হলেই এটি আপলোড দেওয়া ব্যক্তি বা পেজের অ্যাডমিন বরাবর সতর্ক করে একটি নোটিফিকেশন পাঠানো হবে। নতুন করে যারা ভুল পোস্টটি সংক্রান্ত তথ্য আপলোড দিতে চাইবেন তারাও এই নোটিফিকেশন পাবেন।

ফেসবুকের নিউজ পার্টনারশিপ ডিরেক্টর অঞ্জলী কাপুর বলেন, ‘মানুষ ফেসবুক থেকে নির্ভরযোগ্য তথ্য পেতে চান, এটা আমরা সকলেই জানি। তাই বুমের সঙ্গে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশে ফ্যাক্ট চেকিং কর্মসূচি ঘোষণা দিয়ে আমি খুবই উত্তেজনা অনুভব করছি। আমাদের প্রত্যাশা এর মাধ্যমে বাংলাদেশে জ্ঞানসমৃদ্ধ সমাজ নির্মাণে ফেসবুক সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারবে। আগামী দিনে বাংলাদেশেই স্থানীয়ভাবে এই কার্যক্রমের পরিধি আরও বিস্তৃত করার সম্ভাবনা নিয়েও আমরা চিন্তাভাবনা করছি।’

বুমের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক গোবিন্দ এথিরাজ বলেন, ‘বাংলাদেশে আমাদের ফ্যাক্ট চেকিং অপারেশন সম্প্রসারণের মাধ্যমে আমরা খুবই আনন্দ অনুভব করছি। এর মাধ্যমে আমরা অনলাইনে স্বাস্থ্য, চিকিৎসা ও ওষুধসহ নানা প্রকার চলমান ইস্যুতে গুজব ও অপ্রপ্রচার রোধে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারব। তথ্যের সঠিকত্ব যাচাই করাটাই আমাদের ব্যবসা। বাংলাদেশের ব্যবহারকারীরা সঠিক সংবাদটি জেনে সেই অনুসারে নিজ সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’


সর্বমোট পাঠক সংখ্যা : ৮৭