২৩০ মিনিট আগের আপডেট; দিন ৫:৩৫; বৃহস্পতিবার ; ০৯ এপ্রিল ২০২০

ব্লগ

Noimage

৩০ মার্চ ২০২০, ২০:৪৯

‘করোনা’ বনাম ‘বাঙালি’

Abu Sumain

সভ্যতার সূচনালগ্ন থেকে হাজার বছরের বিবর্তনজনিত সমীকরণ পেরিয়েই আমাদের আজকের পৃথিবী। এই হাজার বছরের পুরোনো সমীকরণজুড়ে ছিলো নানান ধরণের প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট দুর্যোগ আর পরিবর্তন। ছিলো যুদ্ধের ভয়াবহতা, পক্ষান্তরে শান্তির সোনালী দিন। বিভিন্ন ধর্মের বাণী পৌছানো নিয়েও কম কাঠখড় পোড়ানো হয়নি মানবশাসিত এই পৃথিবীতে। যুদ্ধবিগ্রহ, শান্তি, সুন্দর, কালো, সুগন্ধ,

Abu Sumain

জার্মান চ্যান্সেলর গিয়েছিলেন ডাক্তারের কাছে। ডাক্তার যে আক্রান্ত, তা ডাক্তার নিজে বা অন্য কেউই জানতেন না। ফলে রোগী ও ডাক্তার উভয়েই আক্রান্ত হলেন অতি ছোঁয়াচে, অতি অচেনা করোনাভাইরাসে।

করোনাভাইরাস অচেনা ও নতুন, তাই বলে মারাত্মকও। কেউ কিছু চেনার, বোঝার আগেই আক্রান্ত হচ্ছেন। যারা ভাইরাস বহন করছেন, তারা যেমন এ সম্পর্কে জানতেন না, যাদের মধ্যে সংক্রামিত

Noimage

৩১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২:৪৯

চাই নিশ্চিন্ত নির্বিঘ্ন নতুন বছর

Abu Sumain

পৃথিবীর বর্ষপরিক্রমায় যুক্ত হলো আরেকটি পালক। নতুন একটি বর্ষে পদার্পণ করল এই অধরা। দিনে দিনে বর্ষ শেষ হয়ে এলো। ইতিহাসের পাতায় নথিভুক্ত হলো আরও একটি বছর ২০২০। সম্ভাবনার অপার বারতা নিয়ে শুরু হলো নতুন বছর। স্বাগত ইংরেজি নববর্ষ, স্বাগত ২০২০।

৩১ ডিসেম্বর রাত ১২টা ১ মিনিটে ভূমিষ্ঠ হলো নতুন একটি বছর। পুরনো একটি বছরকে পেছনে ফেলে সামনে এগিয়ে যাওয়ার দুরন্ত

Noimage

২৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:৫৮

এই বছরটি কেমন গেল?

Abu Sumain

এই বছরটি প্রায় শেষ। অন্যদের কথা জানি না, আমি বেশ আগ্রহ নিয়ে সামনের বছরটির জন্য অপেক্ষা করছি। তার প্রধান কারণ সামনের বছরটিকে আমরা টোয়েন্টি টোয়েন্টি বলতে পারব (যখন কেউ চোখে নির্ভুল দেখতে পারে সেটাকে টোয়েন্টি টোয়েন্টি ভিশন বলে!)। সামনের বছরটি নিয়ে আমরা নানা ধরনের জল্পনা-কল্পনা করছি; কিন্তু এই বছরটি কেমন গেছে? আমি একটা ছোট কাগজে বছরের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা

Noimage

১৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:৫৪

আগামীর রাজনীতি হউক মেধাবীর

Abu Sumain

দেশটা রসাতলে যাচ্ছে, আজকাল রাজনীতিতে নেতাকর্মীরা লোভী, নষ্ট খারাপ হয়ে যাচ্ছে। ইত্যাকার নানাবিদ অভিযোগের শেষ নেই সুশীল সমাজের কাছে। যাদের অধিকাংশ নিজেদের সু-শিক্ষিত বলে দাবী করেন। হউন আপনি এম,পি মন্ত্রীর ছেলে, জমিদার বা শেখের ছেলে, জজ ব্যারিস্টার বা নামিদামী ভার্সিটির পড়ুয়া মেধাবী কেউ। থাকুক আপনার এমফিল ডিগ্রী বা বিদেশের থীসিস করা ডক্টরেট ডিগ্র

Abu Sumain

গবেষকদের ধারণা মতে পাওয়া গেছে, দুই শ’ বছর আগেও বাংলাদেশে শিক্ষা বলতে ছিল কিছু মক্তব ও ছোট পাঠশালা ছিল। শহর কেন্দ্রীক জনপদে ছিল স্বল্পসংখ্যক হাই স্কুল তথা উচ্চ বিদ্যালয়। সময়ের পরিক্রমায় স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশে শিক্ষাখাতে অসাধারণ বিপ্লব ঘটেছে। এখন দেশের প্রতিটি শহর থেকে গ্রামীণ জনপদের প্রতিটি অঞ্চলে গড়ে উঠেছে শিক্ষার আর্দশ পাঠশালা। হোক সরকারি বা

Abu Sumain

ভালো কাজ করলে বাংলাদেশে যে অন্তত সেটার প্রতিদান পাওয়া যায় না, বরং কিছু মানুষের চক্ষুশূলে পরিণত হতে হয়, সেটা আরও একবার প্রমাণীত হলো। নিরাপদ সড়কের দাবীতে ঘরের খেহে বনের মোষ তাড়িয়ে নিঃস্বার্থভাবে আন্দোলন করে যাওয়া একটা মানুষকে নিয়ে যেসব নোংরামি আজ চোখে পড়লো, সেগুলো দেখে হতভম্ভ হয়ে গেছি।

হ্যাঁ, নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের কথা বলছি, গত ছাব্বিশ বছর ধরে যিনি

Abu Sumain

অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে গর্ভখালাস খ্যাত কাকারা সড়কটি সংস্কার হতে যাচ্ছে। সড়ক জনপদ বিভাগ ইতিমধ্যে দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ করে সড়কের কাজ শুরু করতে কার্যাদেশ দিয়েছে। এ খবর শুনে এলাকার বেশুমার মানুষ পুলকিত হয়েছে।

সড়কটির নতুন নামকরণ করা হয়েছে ইয়াংছা, সুরাজপুর, কাকারা, কৈয়ারবিল হয়ে শান্তির বাজার সড়ক। এ সড়ক দিয়ে লক্ষ্যারচর, কাকারা, সুরাজপুর-মান

Abu Sumain

৩ অক্টোবর, দিবাগত রাত তখন পৌনে ১টা। প্রথমে খবর এল গুরুদেবের অবস্থা সংকটময়। আমরা বিহারস্থ ভিক্ষু-শ্রামণরা দ্রুত প্রার্থনায় বসতে যাচ্ছি। এর পাঁচ মিনিটের মাথায় ব্যবধানে খবর এল গুরুদেব আর নেই। মাথার উপর যেন আকাশ ভেঙ্গে পড়ল। কাদঁতে কাদঁতে কিছুক্ষণ পরেই গুরুদেবের মৃত্যু সংবাদ দিয়ে ফেইসবুকে একটা পোস্ট দিলাম। আমার হাত চলছিলনা।

গুরুদেব তো এভাবে চলে যাওয়া

Abu Sumain

বুয়েটের ছাত্র আবরারের নৃশংস হত্যা নিয়ে সোচ্চার রয়েছেন বুয়েটের সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা, যদিও এর মধ্যেই এ পর্যন্ত ১৮ জনকে এ হত্যার দায়ে অভিযুক্ত হিসেবে আটক করা হয়েছে। আবরারের দু-একজন সহপাঠী দোষ স্বীকার করে যে জবানবন্দি দিয়েছেন, তার বিবরণ লোমহর্ষক এবং অত্যন্ত নৃশংস মধ্যযুগীয় পন্থা। এ ধরনের হত্যার তুলনা বিরল।

এ হত্যা নিয়ে উত্তাল ছিল বুয়েট, যা এখন অনেকট

Abu Sumain

বর্তমান সময় নিয়ে চিন্তা করলে বিশ্ব বিখ্যাত বিজ্ঞানী অ্যালবার্ট আইনস্টাইনের একটা সাড়া জাগানো উক্তি চোখের সামনে ভেসে উঠে।তিনি হয়তো "সমাজ পরিবর্তন" কেন্দ্রিক চিন্তা চেতনা থেকে এই কথাটি বলেছিলেন -এই পৃথিবী কখনো খারাপ মানুষের খারাপ কর্মের জন্য ধ্বংস হবে না, যারা খারাপ মানুষের খারাপ কর্ম দেখেও কিছু করেনা তাদের জন্যই পৃথিবী ধ্বংস হবে।

আজকাল সমাজের প্রত

Abu Sumain

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের সরকার প্রধানের বক্তব্যে তাদের কোন আগ্রহ নেই। বরং পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের জাতিসংঘে দেওয়া বক্তব্য নিয়ে যাথারীতি কিছু বাংলাদেশীর অতি আগ্রহ ও বাড়াবাড়ি পরিলক্ষিত হচ্ছে।

তারা ইমরান খানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তাদের কথা শুনে মনে হচ্ছে তারা পাকিস্থানীদের চেয়ে বড় পাকিস্তানী। কখনো ধর্মের মোড